উষ্ণতার ছোঁয়া দিল সেচ্ছাসেবী সংস্থা “চলো পাল্টাই”

ঝাড়গ্রাম জেলার প্রত্যন্ত গ্রাম গোপালপুর ও তার পাশাপাশি গ্রাম গুলি যেখানে লোধা সম্প্রদায়ের প্রায় আঠারোশ থেকে দুই হাজার মানুষ বসবাস করে। ঝাড়গ্রাম এর গিধনী স্টেশন থেকে কিছু দূরেই এই মানুষদের গ্রাম। সেই গ্রামের মানুষদের পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার চলো পাল্টাই পরিবারের সদস্যরা পৌঁছে গেল শীত শুরুর আগেই। পুরাতন শীতের পোশাক এর সঙ্গে পুরোনো পোশাক সব মিলিয়ে তিন হাজারের বেশি পোশাক নিয়ে তারা হাজির ছিল ওই দিন ।

সেই সঙ্গে মহিষাদল গার্লস কলেজ MSW এর ছাত্র ছাত্রীরাও যোগ দিয়েছিলো হাতে কলমে কাজ করার জন্য। আগামী দিনে মেডিকেল ক্যাম্প করার উদ্দেশ্যে নিয়ে একটি চিকিৎসকদের প্রতিনিধিদল দিয়ে এলাকার সমীক্ষা করানো হয় ঐ দিন। সংগঠনের কান্ডারী মধুসূদন পড়ুয়া বলেন ‘২০১৭ সালে ১৩ ডিসেম্বর প্রথম অঙ্গীকার পূরণ এর মধ্য দিয়ে পথচলা শুরু করেছিলো এই চলো পাল্টাই গ্রুপ, ৫০ জন কে সহযোগিতা করতে নিজেদের বাড়ির পোশাক নিয়ে মাঠে নেমে ছিলাম। সেই দিন বেশ কিছু মানুষের সহযোগী পেয়েছি, কিন্তু আজ আমরা গর্বিত এই অসহায় মানুষদের পাশে আমরা দাঁড়াতে পেরে। আমরা সব সময় চেষ্টা করি সরাসরি মানুষগুলোর পাশে থাকতে। ‘

আরও পড়ুন: তৈলাক্ত খাবার হৃদরোগের জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ : দেবি শেঠি !!

ঝাড়গ্রাম এর দায়িত্বে থাকা তাপস বাবু জানিয়েছেন আমরা চাইছি যাদের কাছে অনেক আছে সেখান থেকে কিছুটা নিয়ে যাদের নেই তাদের মধ্যে বিলিয়ে দিতে। ঐ দিন চলো পাল্টাই পরিবার কে গ্রামের মানুষ জল মিষ্টি ও পুদিনা পাতার সরবৎ দিয়ে আপ্যায়ন করেন। পুরোনো হলেও এই শীতে গরম পোশাক পেয়ে এলাকার মানুষ ভীষণ আনন্দিত। সংগঠনের সভাপতি পলাশ বাবু বললেন, ‘আমরা সামাজিক জীব, আমাদের কর্তব্য, আমাদের দায়িত্ব এগুলি সব ভুলতে বসেছি! তাই, চলো পাল্টাই পরিবার সেই মূল্যবোধ গুলিকে ফেরানোর পথ বেছে নিয়েছে। 2019 সালে আরো অনেক অঙ্গীকার নিয়ে মানুষের পাশে থাকার বার্তা দেন সংগঠনের সহ সম্পাদক ছন্দক দাস ।

আরও পড়ুন: এক গুচ্ছ অঙ্গীকার নিলো চলো পাল্টাই পরিবার

আরও পড়ুন:বাজার কাঁপাতে চলে এল VIVO -এর New পরবর্তী Smarphone Nex 2

Please follow and like us:

Related posts