মন ছুতি চাইলে কম খরচে ঘুরে আসুন ভাইজাগ বা ভিশাখাপত্তনম

ভাইজাগ বা ভিশাখাপত্তনম ট্যুর খুব কম খরচে

Cheap destination Vizag :

৫ /৬ জনের গ্রুপ হল প্রতিজন পিছু খরচ হবে ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা। (তবে খরচ টা আপনাদের ঘোরার ওপর চেঞ্জ হতে পারে)

পুরী যেতে যা খরচ হয়, সেই খরচেই ঘুরে আসুন আরো একটি সুন্দর জায়গা এই ভাইজাগ। পাহাড় ও সমুদ্রের মিলনে এই জায়গা অপূর্ব, বাঙালির কাছে দিঘা পুরীর পর ভাইজাগ হলো আরেকটি বিশেষ প্রিয় ও আকর্ষণীয় জায়গা। আমি একটি ট্যুর প্লান দিলাম, আপনাদের প্রয়োজন মতো প্ল্যানটা একটু পরিবর্তন  করে নেবেন।

Train and Hotel booking:

আপনারা প্রথমেই, মাস চারেক আগে ট্রেনের টিকিট বুক করুন IRCTC এর ওয়েবসাইটে বা Apps থেকে Howrah to Vizag , সঙ্গে আরও একটা ট্রেন টিকিট বুক করতে পারেন Vishakhapatnam থেকে Araku পর্যন্ত Slipper বা AC তে, যদি না APTDCএর ট্যুর প্যাকেজের মাধ্যমে যেতে চান। আর APTDC এর ট্যুর প্যাকেজের মাধ্যমে গেলেও আগেই বুক করে নিতে হবে।

হোটেল বুকিং করতে পারেন Make My Trip Apps থেকে, অথবা বিভিন্ন হোটেল বুকিং ওয়েবসাইটে ইনফরমেশন পেতে পারেন হোটেল সম্বন্ধে । ডিরেক্ট ওখানে পৌঁছেও হোটেল পাবেন। প্রায় পুরীর মতন চারিদিকে হোটেল বিভিন্ন দামের পাবেন। তবে আমার খুব পছন্দের ঋষিকন্ডা বিচ এর ওপরে যেসব হোটেল আছে সেগুলো তে থাকতে পারলে দারুন । এটা বুক করতে গেলে APTDC এর ওয়েবসাইটে গিয়ে বুক করতে হবে।নীচে ওই ওয়েবসাইটের ডিটেইলস দেওয়া হলো আপনাদের জন্যে।




এবারে অসা যাক ট্রিপের ব্যাপারে:

Day 1: যেদিন ভোরবেলা পৌঁছালেন সেদিন একটু রেস্ট নিয়ে চলে যান “সীমাচলাম টেম্পল” Auto  বা ট্যাক্সি নিয়ে । অটো করে গেলে যেখানে অটো নামাবে তার পাশেই পাবেন সরকারি বাস, ফেরার পথে সরকারি বাস পাবেন মন্দিরের বাইরেই। সীমাচালাম টেম্পল ঘুরে আসতে ৩ থেকে ৪ ঘন্টা লাগবে। সন্ধ্যায় রামকৃষ্ণ বিচে চলে যান এবং সেখানে কিছুক্ষন সময় কাটিয়ে কাছের দক্ষিনেশ্বরী কালি মন্দির ঘুরে দেখতে পারেন। সময় থাকলে তার পাশেই আছে মাছের একোরিয়াম সেটা দেখতে ভুলবেন না যেন। হ্যাঁ বিচে বসে Sweet Corn ( মিষ্টি ভূট্টা) না খেলে অনেক কিছু মিস করবেন। ঐরকম ভুট্টা এখানে কোথ্থাও পাবেন না।

Day 2:

By train Vizag to Araku, ট্রেন সকাল সাতটায়। নামবেন Borakuvalu station এ, around 10 টার সময়।

তারপর Bora Cave দেখে Araku Vally যাবেন। ট্রেন এ আপনারা খোঁজ করবেন AP Tourisim এর কোনো গাইড আছে কিনা পেয়ে গেলে তাহলে আপনার lucky, না হলে কার বুক করবেন Borakuvalu Rail station থেকে। Bora Cave র কাছে ছোট্ট কিছু হোটেল আছে ওখানেই Lunch করতে হবে না হলে পরে কোনো হোটেল পাবেন না।

তারপর যাবেন কফি গার্ডেন ও একটি Tribal Village দেখবেন। সেখানে আছে একটি ছোট্ট পাহাড়ি ঝর্ণা। সেখানে চিকেন কাবাব বলে Pork (শুওরের মাংস) বিক্রি করে আগেই তাই আমি সাবধান করছি।

এর পর আসবে “ভিউ পয়েন্ট”  যেখানে দাঁড়িয়ে ছবি না তুলে পারবেন না, খুব সুন্দর এই জায়গাটা , ওখানে কফি কিনতে পারেন খুব ভালো তা বলবো না তবে সস্তায় ভালোই পাবেন।

তারপর আসবে Araku মেন টাউন ওখানে Tribal Musium দেখেতে বেশ ঘন্টা খানেক সময় লাগবে। ওখানেই আজকের ট্যুর শেষ তারপর Araku স্টেশনে গিয়ে ট্রেন এ ফিরবেন Vizag,

ট্রেন ছাড়ে বিকাল 5:30 এর কাছাকাছি।ট্রেন এ সেদ্ধ বাদাম পাবেন ও ভাজা বাদাম খোলা সুদ্দু। বিশেষ কিছু খাবার ট্রেন এ নেই কিন্তু।বাচ্চা থাকলে খাবার নিয়ে নেবেন Araku বাজার থেকে,ফিরতে ফিরতে প্রায় রাত 9 টা বাজবেই। হোটেলে ফোনে রাতের খাবার বুক করতে পারেন অথবা হায়দ্রাবাদী বিরিয়ানির প্রচুর ভালো রেস্তোরাঁ আছে সেখানে গিয়েও খেতে পারেন।

Aptdc এর প্যাকেজে গেলে খুব ভালো, খরচ একটু বেশি পরে তবে কোনো প্রবলেম হবে না। আগে থেকে বুক করতে না পারলে ওখানে গিয়েও বুক করা যায়। অনেক জায়গাতেই ওই অফিস আছে। সারাদিনের খাবার ওরাই দিয়ে দেবে।

Day 3:

ব্রেএকফাস্ট সেরে একটা auto বা কার নিয়ে প্রথমে যাবেন ঋষিকন্ডা বিচ, সেখান থেকে Kailashgiri হিল, Kailashgiri হিল ওঠতে হবে Roapway করে। সেখানে বিকেল পর্যন্ত কাটিয়ে ট্রয় ট্রেন এ চেপে ঘুরে নেবেন। ফেরার পথে আছে VUDA park ও Submarine , বিকালে হোটেলে ফিরে, সন্ধ্যে বেলায় আবার রামকৃষ্ণ বিচ। Kailashgiri হিল সন্ধ্যা বেলায় আরেকবার যেতে পারলে খুব ভালো হয় , পাহাড় থেকে ভাইজাগ সিটি অপূর্ব এক দৃশ্য, না দেখলে বোঝানো যাবে না।

এই ট্যুর টাও Aptdc এর প্যাকেজে গেলে খুব ভালো, খরচ একটু বেশি পরে তবে কোনো প্রবলেম হবে না। আগে থেকে বুক করতে না পারলে ওখানে গিয়েও বুক করা যায়। অনেক জায়গাতেই ওই অফিস আছে। সারাদিনের ঘোরা খাওয়া সব packager মধ্যে।

Day 4:

সকাল বেলায় 10টা নাগাদ একটা auto করে ফিশিং হারবার যাবেন, সেখানে বোটে করে সমুদ্রে যেতে ও ভাইজ্যাক শহর কে দেখার মজাই আলাদা।

এছারাও আপনি দেখতে পারবেন Submarine Musium. এটি রামকৃষ্ণ বিচ এ অবস্থিত।

সন্ধ্যের সময় ফেরার ট্রেন। এখন ট্রেনের খাবার IRCTC এর বাইরেও খেতে পারেন। আপনি কোন স্টেশন এ কি কি খাবার খেতে চান সেটা বুক করলে আপনার সিটে গিয়ে পৌঁছে দেবে। IRCTC APPs এ বুক করার অপশন আছে। একটা OTP আসবে সেটা বলতে হবে ডেলিভারি বয় কে।

বিশেষ কিছু ইনফরমেশন

ভাইজাগ গিয়ে খাবার জন্যে বাঙালি হোটেল খোঁজার কোনো দরকার নেই, সেখানে খুব ভালো কিছু পাবেন না। যেখানে থাকবেন সেখানেই প্রচুর ভালো ভালো খাবার পাবেন যদিও বেশিরভাগই সাউথ ইন্ডিয়ান খাবার, আর কিছু কিনতে হলে দুটো জিনিস খুব বিখ্যাত ।

এক: স্টিল এর বাসনপত্র।
দুই: বেকিংবিস্কুট,পারলে অবশ্যই নিয়ে আসবেন।

কোনোরকম প্রবলেম থাকলে AP ট্যুরিজম এর সাথে যোগাযোগ করবেন বা APTDC এর ওয়েবসাইটে যান, সব ইনফরমেশন পেয়ে যাবেন।

হোটেল বুক কারার জন্য  এ check করতে পারেন।




Please follow and like us:

Related posts