চাঁদার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জিতল পশ্চিম বর্ধমানের শিক্ষকরা

কাউন্সিলের নির্দেশ প্রত্যাহার, প্রাথমিকের খেলায় চাঁদার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জিতল পশ্চিম বর্ধমানের শিক্ষকরা

মাত্র একদিন আগেই প্রাথমিক স্কুলের খেলা আয়োজনে স্কুল পিছু ৫০০টাকা করে চাঁদা ধার্য করে নোটিশ জারি করেছিল পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রাথমিক স্কুল কাউন্সিল। আর চাপে পড়ে মঙ্গলবারেই চাঁদা’র নির্দেশ প্রত্যাহার করে নিল তাঁরা।

সোমবার প্রাথমিকের খেলা চালাতে চাঁদার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে বিভিন্ন প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনের তরফ থেকে। উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারী টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশান, পশ্চিম বঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির বর্ধমান জেলা শাখা সহ একাধিক শিক্ষক সংগঠন সরাসরি এর বিরোধীতা শুরু করে।

স্কুলের নামে গায়ের জোরে শিক্ষকদের থেকেই টাকা তোলার জন্য এমন নির্দেশিকা জারি হয়েছিল বলে অভিযোগ শিক্ষক সংগঠনগুলির। এই নিয়ে একের পর এক প্রতিবাদের ঝড় উঠতেই অবশেষে রনে ভঙ্গ দিল পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রাথমিক স্কুল কাউন্সিল।

মঙ্গলবার তড়িঘড়ি নোটিশ জারি করে জানিয়ে দেওয়া হল, সোমবারের নির্দেশিকা প্রত্যাহার করা হল। তবে এই প্রত্যাহারের পেছনে কারন কি তা নিয়ে কিছুই জানানো হয়নি।
আরও পড়ুন – প্রাথমিকের খেলা চালাতে বাধ্যতামূলক চাঁদার নির্দেশ পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রাথমিক স্কুল কাউন্সিলের !
প্রসঙ্গতঃ দীর্ঘদিন ধরে প্রাথমিক শিক্ষকরা রাজ্য সরকারের বঞ্চনার শিকার বলে অভিযোগ। PRT স্কেল নিয়ে সরকারের গড়িমশি, মাদ্রাসা স্কুলের শিক্ষকদের সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য সব মিলিয়ে ক্ষোভ ক্রমেই বাড়ছে প্রাথমিক শিক্ষক মহলে।

নিজেদের দাবীতে ইতিমধ্যে রাজ্য জুড়ে শোরগোল ফেলে দিয়েছে একের পর এক প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগঠন। দীর্ঘদিনের রীতি মেনে প্রাথমিক স্কুলের খেলা চালানোর জন্য শিক্ষকদের কাছ থেকে গায়ের জোরে চাঁদা তোলার বিরুদ্ধে এবারেই সব থেকে বেশী সরব হয়েছেন তাঁরা।
এবারেও অনেক জেলায় প্রাথমিক শিক্ষকরা খেলা চালাতে চাঁদা দিলেও অনড় রয়েছে UUPTWA সহ বেশ কয়েকটি শিক্ষক সংগঠন। ঘাটাল শহরের শিক্ষকরা ইতিমধ্যে কোনও চাঁদা না দিয়ে নিজেদের দাবী প্রতিষ্ঠা করেছেন।
পশ্চিম বর্ধমান জেলা স্কুল কাউন্সিলের চাঁদা তোলার নোটিশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় তুলল পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি !
সেই পথেই এবার সাফল্য পেল পশ্চিম বর্ধমানের শিক্ষকরা। প্রাথমিক স্কুলের খেলা চালাতে যেখানে রাজ্য সরকার টাকা দিচ্ছে সেখানে কেন শিক্ষকদের থেকে টাকা নেওয়া হবে এই নিয়েই বিরোধ। যদিও সূত্রের খবর, প্রাথমিকের চক্রের খেলায় কোনও টাকা বরাদ্দ হয় না। মহকুমা ও জেলা স্তরের খেলায় সরকার টাকা দিয়ে আসছে।

কিন্তু এবার অনড় শিক্ষকদের একাংশ। তাঁদের দাবী, রাজ্য সরকার যেখানে ক্লাব পিছু ২ লক্ষ টাকা, দুর্গা পুজোয় ক্লাবে ক্লাবে টাকা বিতরণ করছেন, সেখানে প্রাথমিক স্কুলের খেলা চালাতে কেন শিক্ষকদের থেকে গায়ের জোরে চাঁদা নেওয়া হবে। এরই প্রতিবাদে আন্দোলন ক্রমেই জোরদার হচ্ছে রাজ্য জুড়ে।

Please follow and like us:

Related posts